৭ই শ্রাবণ, ১৪৩১| ২২শে জুলাই, ২০২৪| ১৫ই মহর্‌রম, ১৪৪৬| রাত ১১:৪৪| বর্ষাকাল|

কলেজ ছাত্রলীগের নেতাকে প্রকাশ্যে কুপিয়ে হত্যা

Reporter Name
  • Update Time : বৃহস্পতিবার, ৬ জুন, ২০২৪
  • ১৭ Time View

নিজস্ব প্রতিবেদক :

গাজীপুরের কালিয়াকৈরে মো. আল আমিন হোসেন (২০) নামের এক কলেজ ছাত্রলীগের নেতাকে প্রকাশ্যে কুপিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি ও তার সহযোগীদের বিরুদ্ধে। আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে উপজেলার চন্দ্রা এলাকার ডাইনকিনি সড়কে শাহ মখদুম মার্কেটের সামনে আল আমিনকে কুপিয়ে হত্যার ঘটনা ঘটে।

নিহত আল আমিন কালিয়াকৈর উপজেলার বরিয়াবহ গ্রামের মো. মোতালেব মিয়ার ছেলে। তিনি উপজেলার জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু সরকারি কলেজের ডিগ্রী দ্বিতীয় বর্ষ ছাত্রলীগের সভাপতি ছিলেন।

কলেজ কর্তৃপক্ষ, পুলিশ ও শিক্ষার্থীরা জানায়, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু সরকারি কলেজে গতকাল বুধবার কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আজাদ কামাল ওরফে সোহানের নেতৃত্বে দ্বাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থীদের নিয়ে বিদায় অনুষ্ঠানের অনুমতি নিয়ে র‌্যাগ ডে পালন করেন। ওই অনুষ্ঠানের দায়িত্বরত শিক্ষকদের সামনে কলেজ ক্যাম্পাসে উচ্চস্বরে মাইক বাজিয়ে হৈ-হুলোড় করে ছাত্ররা। অনুষ্ঠানে শতাধিক মোটরসাইকেল নিয়ে মহড়া দেয় সোহান ও তার সহযোগীরা। একপর্যায়ে ওই কলেজের স্নাতক তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থীদের সঙ্গে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন তারা। এ সময় উভয় পক্ষের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া হয়।

ওই ঘটনার জেরে আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি ও কলেজের স্নাতক তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী ইমন খান ও তার সহযোগী সাকিব হৃদয়, আকাশ ও হাসানসহ ১০-১২ জন ছাত্র কলেজের মাঠে আল আমিন হোসাইন ও কামরুলকে দেখতে পেয়ে ধাওয়া দেন। এ সময় আল আমিন ও কামরুল দৌড়ে পালানোর চেষ্টা করেন। একপর্যায়ে আল আমিন ও কামরুল কলেজের পশ্চিম পাশে ডাইনকিনি সড়কে শাহ মখদুম মার্কেটের সামনে গিয়ে পড়ে যান। এ সময় পৌর ছাত্রলীগের সভাপতির নেতৃত্বে কয়েকজন ছাত্রলীগ নেতাকর্মী ও কলেজছাত্র তাদের মারধর ও কুপিয়ে জখম করেন।

এ ঘটনায় আশপাশের লোকজন এগিয়ে আসলে হামলাকারীরা পালিয়ে যান। স্থানীয়রা আহত অবস্থায় তাদের উদ্ধার করে কালিয়াকৈর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক আল আমিনকে মৃত ঘোষণা করেন।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু কলেজের অধ্যক্ষ সুফিয়া বেগম বলেন, বুধবার শিক্ষার্থীদের আবেদনের ভিত্তিতে তাদের বিদায়ী অনুষ্ঠান করার অনুমতি দেওয়া হয়েছিল, র‌্যাগ ডে পালনের অনুমতি দেওয়া হয়নি। ওই অনুষ্ঠানে কলেজের বেশ কয়েকজন শিক্ষককে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল। অনুষ্ঠানে কিছু অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা ঘটেছে। ওই ঘটনার জের ধরেই আজকে একটি পক্ষ কলেজছাত্রকে পিটিয়ে ও কুপিয়ে হত্যা করেছে।

কালিয়াকৈর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এএফএম নাসিম জানান, কলেজে র‌্যাগ ডে পালনকে কেন্দ্র করে শিক্ষার্থীদের দুই গ্রুপের মধ্যে বিরোধ সৃষ্টি হয়। সেই বিবাদের জের ধরে আজ দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে এক পক্ষের হামলায় এক কলেজছাত্র নিহত হন। এই ঘটনায় এখন পর্যন্ত কাউকে গ্রেপ্তার করা হয়নি। হত্যাকারীদের গ্রেপ্তারে অভিযান চালানো হচ্ছে এবং আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

Please Share This Post in Your Social Media

More News Of This Category