২রা আষাঢ়, ১৪৩১| ১৬ই জুন, ২০২৪| ৯ই জিলহজ, ১৪৪৫| সকাল ৭:৪৭| বর্ষাকাল|

এখন আমাদের স্মার্ট বাংলাদেশের স্বপ্ন দেখিয়েছেন। স্মার্ট বাংলাদেশ গড়তে সবার আগে প্রয়োজন স্মার্ট শিক্ষা এজন্যই আমরা শিক্ষায় রুপান্তর ঘটিয়েছি। আমরা নানা প্রতিবন্ধকতা থাকা সত্বেও এ বছর থেকে নতুন শিক্ষাক্রম নিয়ে এসেছি। করোনার সময়ে আমাদের শিক্ষায় যে ক্ষতি হয়েছে তা বের করার জন্য আমরা গবেষনা করেছি। আমাদের গবেষনা বলছে এতে শিক্ষার্থীদের খুব ক্ষতি হয়নি বরং লাভ হয়েছে। শিক্ষার্থীরা নিজে নিজে শেখার অভ্যাস গড়ে তুলেছে। নিজেদের শেখার প্রবনতা তৈরী হয়েছে দক্ষতা তৈরী হয়েছে। এর পরও আমরা থেমে থাকছি না। আজকে জাতিসংঘ বলছে দক্ষিন এশিয়ায় মাধ্যমিকে সবচেয়ে অগ্রগামী বাংলাদেশ। নতুন শিক্ষাক্রমে আমরা করে করে শিখবো, যা শিখবে তা আত্মস্থ করতে হবে, আত্মস্থ করে এর প্রয়োগ করতে হবে। আজকের যোগে মুখস্ত বিদ্যা অচল। শিক্ষার্থীরা করে করে শিখবে, সক্রিয় শিখন, অভিজ্ঞতা ভিক্তিক শিখন। পরীক্ষা ভীতি বলে কিছু থাকছে না। থাকবে ধারাবাহিক মূল্যায়ন। মূল্যায়ন শুধু শিক্ষক করবে না, তার অভিভাবক করবে, তার সহপাঠিরা করবে, সে নিজেও করবে। :শ্রীপুরে শিক্ষামন্ত্রী ডাঃ দিপু মনি